Home / জাতীয় / বাংলাদেশ ও চীন দ্বিপাক্ষিক ৯টি চুক্তি স্বাক্ষর

বাংলাদেশ ও চীন দ্বিপাক্ষিক ৯টি চুক্তি স্বাক্ষর

বাংলাদেশ ও চীন বিভিন্ন ক্ষেত্রে দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতার অংশ হিসেবে ৯টি চুক্তি স্বাক্ষর করেছে।

এর মধ্যে রয়েছে- রোহিঙ্গাদের খাদ্য সহায়তার জন্য এলওসি (লেটার অব এক্সচেঞ্জ) এবং অর্থনৈতিক ও কারিগরি সহযোগিতা, বিনিয়োগ, বিদ্যুৎ, সংস্কৃতি এবং পর্যটন সংক্রান্ত চুক্তি ও সমঝোতা স্মারক ।

আজ বৃহস্পতিবার সকালে ‘গ্রেট হল অব পিপল’-এ বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং চীনের প্রধানমন্ত্রী লি কেকিয়াংয়ের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক শেষে এ চুক্তিগুলো স্বাক্ষরিত হয়।বৈঠক শেষে দুই নেতার উপস্থিতিতে উভয় দেশের মন্ত্রী এবং সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এতে স্বাক্ষর করেন।

পররাষ্ট্র সচিব মো. শহীদুল হক এ কথা জানান।রোহিঙ্গা শরণার্থীদের খাদ্য সাহায্য সংক্রান্ত এলওসি। এর আওতায় মিয়ানমার থেকে জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাদের জন্য চীন ২ হাজার ৫শ মেট্রিক টন চাল সরবরাহ করবে বলে পররাষ্ট্র সচিব জানান।স্বাক্ষরিত অপর চুক্তিগুলো হলো-

> সাংস্কৃতিক বিনিময় ও পর্যটন কর্মসূচি নিয়ে সমঝোতা স্মারক।
> ইয়ালু ঝাংবো ও ব্রহ্মপুত্র নদীর তথ্য বিনিময় সংক্রান্ত সমঝোতা স্মারক ও তা বাস্তবায়নের পরিকল্পনা।
> ডিপিডিসির আওতাধীন এলাকায় বিদ্যুৎ ব্যবস্থা সম্প্রসারণ ও শক্তিশালীকরণ নিয়ে ফ্রেমওয়ার্ক এগ্রিমেন্ট।
> বাংলাদেশ ও চীন সরকারের মধ্যে অর্থনীতি ও কারিগরি সহযোগিতা বিষয়ক চুক্তি।

> ইনভেস্টমেন্ট কোঅপারেশন ওয়ার্কিং গ্রুপ প্রতিষ্ঠা নিয়ে সমঝোতা স্মারক।

> পিজিসিবি প্রকল্পের আওতায় বিদ্যুৎ গ্রিড নেটওয়ার্ক জোরদার প্রকল্পের জন্য ফ্রেমওয়ার্ক এগ্রিমেন্ট।

> ডিপিডিসির আওতাধীন এলাকায় বিদ্যুৎ ব্যবস্থা সম্প্রসারণ ও শক্তিশালীকরণ নিয়ে গভর্নমেন্ট কনসেশনাল লোন এগ্রিমেন্ট।

> ডিপিডিসির আওতাধীন এলাকায় বিদ্যুৎ ব্যবস্থা সম্প্রসারণ ও শক্তিশালীকরণ নিয়ে প্রিফারেনশিয়াল বায়ার্স ক্রেডিট লোন এগ্রিমেন্ট।

আর আগে, বৃহস্পতিবার সকালে চীনের গ্রেট হল অব দ্য পিপলে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে লালগালিচা সংবর্ধনা ও গার্ড অব অনারের মাধ্যমে উষ্ণ অভ্যর্থনা জানানো হয়।

বেলা সাড়ে ১০টার পর প্রধানমন্ত্রী তিয়েনআনমেন স্কয়ারে গ্রেট হলে পৌঁছলে তাকে স্বাগত জানান চীনের প্রধানমন্ত্রী লি কেকিয়াং।

গ্রেট হলের সামনে দুই দেশের প্রতিনিধিদের সঙ্গে পরিচিত হন সফররত বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী ও স্বাগতিক চীনের প্রধানমন্ত্রী।গ্রেট হলের সামনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে লালগালিচা সংবর্ধনা জানানো হয়। সশস্ত্র বাহিনীর একটি চৌকস দল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে গার্ড অব অনার প্রদান করে।

এ সময় দুই দেশের জাতীয় সংগীত পরিবেশন করা হয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভিবাদন জানিয়ে তোপ ধ্বনি দেওয়া হয়।বেলা ১১টার দিকে গ্রেট হলে দুই দেশের প্রতিনিধিদের নিয়ে দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে বসেন। দ্বিপাক্ষিক বৈঠকের গুরুত্বপূর্ণ আলোচনার পর এসব চুক্তি ও সমঝোতা স্মারক সই হয়।

About Desk

Check Also

সারা দেশে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে ভর্তি হয়েছেন ১৬৪৯ জন

সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে ভর্তি হয়েছেন ১৬৪৯ জন। এর মধ্যে রাজধানীর …

Leave a Reply