Home / খেলা / সেমিফাইনালে ইংল্যান্ড

সেমিফাইনালে ইংল্যান্ড

নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে তৃতীয় দল হিসেবে বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল নিশ্চিত করল ইংল্যান্ড। এর আগে অস্ট্রেলিয়া ও ভারত সেমিফাইনালের টিকিট নিশ্চিত করে।

যারা জিতবে তারাই সেমিতে, পরাজিত দলের অপেক্ষা করতে হবে শুক্রবার পর্যন্ত- এমন সমীকরণ মাথায় নিয়েই চেস্টার লি স্ট্রিটে খেলতে নেমেছিল ইংল্যান্ড ও নিউজিল্যান্ড। আর এ ম্যাচে অপেক্ষাটা বেড়েছে নিউজিল্যান্ডেরই।

কিউইদের ১১৯ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়ে অস্ট্রেলিয়া ও ভারতের পর তৃতীয় দল হিসেবে সেমিফাইনাল নিশ্চিত করেছে স্বাগতিক ইংল্যান্ড।

নিজেদের সবকয়টি ম্যাচ খেলে ইংল্যান্ডের ঝুলিতে জমা পড়েছে ১২ পয়েন্ট।সমান ম্যাচ খেলে নিউজিল্যান্ডের সংগ্রহ ১১ পয়েন্ট। তবু আশা শেষ হয়ে যায়নি কিউইদের। এখনও বেশ ভালোভাবেই সেমিতে খেলার সুযোগ ও সম্ভাবনা রয়েছে গত আসরের ফাইনালিস্টদের।টার্গেট তাড়া করতে নেমে চরম ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে যায় নিউজিল্যান্ড।

১৬.৪ ওভারে ৬৯ রানে হেনরি নিকোলস, মার্টিন গাপটিল, কেন উইলিয়ামসন, ও রস টেইলরের মতো তারকা চার ব্যাটসম্যানের উইকেট হারিয়ে কোণঠাসা হয়ে পড়ে কিউইরা। পঞ্চম উইকেটে জেমস নিশামকে সঙ্গে নিয়ে ৫৪ রানের জুটি গড়েন টম লাথাম।এরপর সময়ের ব্যবধানে উইকেট হারায় কিউইরা। ২৭ বলে ১৯ রান করে ফেরেন নিশাম। মাত্র ৩ রানে ফেরেন কলিন ডি গ্রান্ডহোম।

দলের ব্যাটিং বিপর্যয়ের দিনে দুর্দান্ত ব্যাটিং করে যাওয়া টম লাথামকে সাজঘরে ফেরান লিয়াম প্লাঙ্কেট। তার আগে ৬৫ বলে ৫৭ রান করেন তিনি।সপ্তম ব্যাটসম্যান হিসেবে টম লাথামের বিদায়ের পর আসা-যাওয়ার মধ্যেই ছিলেন মিসেল স্যান্টনার, ম্যাট হেনরি ও ট্রেন্ট বোল্টরা।

শেষ পর্যন্ত ৪৫ ভারে ১৮৬ রান তুলতে সক্ষম হয় নিউজিল্যান্ড। ১১৯ রানের বড় ব্যবধানে জয় পায় ইংল্যান্ড।ইংল্যান্ডের পক্ষে বল হাতে মার্ক উড নেন ৩ উইকেট। এছাড়া জোফ্রা আর্চার, বেন স্টোকস, লিয়াম প্লাঙ্কেট, আদিল রশিদ ও ক্রিস ওকস নেন ১টি করে উইকেট।

এর আগে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে উড়ন্ত সূচনা করেন দুই ওপেনার জেসন রয় আর জনি বেয়ারস্টো। ১১২ বলে তারা গড়েন ১২৩ রানের ঝড়ো জুটি। ৬১ বলে ৮ বাউন্ডারিতে ৬০ রান করা রয়কে ফিরিয়ে এই জুটিটি ভাঙেন জেমস নিশাম।তারপরও ৩০তম ওভার পর্যন্ত বেশ স্বাচ্ছন্দ্যেই এগিয়ে যাচ্ছিল ইংল্যান্ড, রান ছিল ১ উইকেটে ১৯৪।

ট্রেন্ট বোল্টের করা ৩১তম ওভারের প্রথম বলে ২৪ রান করে জো রুট আউট হওয়ার পরইে যেন মরক লেগে যায় ইংলিশ ইনিংসে।পরের ওভারে ম্যাট হেনরির দুর্দান্ত এক ডেলিভারিতে বোল্ড হন সেঞ্চুরিয়ান জনি বেয়ারস্টো। ৯৯ বলে গড়া ইংলিশ ওপেনারের ১০৬ রানের ঝড়ো ইনিংসটি ছিল ১৫টি চার আর ১টি ছক্কায় সাজানো।

এরপর জস বাটলার (১১), বেন স্টোকস (১১), ক্রিস ওকস (৪)-অল্প সময়ের ব্যবধানে ফিরে গেলে বিপদেই পড়ে ইংল্যান্ড। ২ উইকেটে ২০৬ রান থেকে ৬ উইকেটে ২৫৯ রানে পরিণত হয় স্বাগতিকরা।তবে সতীর্থদের এই আসা যাওয়ার মাঝেও ৪০ বলে ৪২ রানের একটি ইনিংস খেলেছেন ইংলিশ দলপতি ইয়ন মরগান।

আর শেষদিকে আদিল রশিদের ১২ বলে ১৬ আর লিয়াম প্ল্যাংকেটের ১২ বলে অপরাজিত ১৫ রানের দুটি ছোট ইনিংসে তিনশো পার করতে পারে স্বাগিতকরা।নিউজিল্যান্ডের পক্ষে ২টি করে উইকেট নেন ট্রেন্ট বোল্ট, ম্যাট হেনরি আর জেমস নিশাম।

About Desk

Check Also

সাউথ আফ্রিকাকে হারিয়ে পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে নিউজিল্যান্ড

দক্ষিণ আফ্রিকাকে ৪ উইকেটে হারিয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষস্থানে ওঠে এসেছে নিউজিল্যান্ড। এই হারে সাউথ আফ্রিকার …

Leave a Reply